Skip to main content

আমাদের দেশে আইনগুলো মূলত ভাঙ্গার জন্য : মো. শাহনেওয়াজ

  • আমাদের দেশে আইনগুলো মূলত ভাঙ্গার জন্য : মো. শাহনেওয়াজ
    আমাদের দেশে আইনগুলো মূলত ভাঙ্গার জন্য : মো. শাহনেওয়াজ

সাবেক নির্বাচন কমিশনার মো. শাহনেওয়াজ বলেছেন, দেশের আইনগুলো তৈরি হয়েছে মূলত ভাঙ্গার জন্য। দেশের আইন ভাঙ্গার দিকেই বেশি ঝোঁক আমাদের দেশের রাজনীতিবিদদের। রোববার ‘নিউজ ২৪’ এর ‘জনতন্ত্র গণতন্ত্র  টকশোতে এসব কথা বলেন তিনি।

উদাহরণ দিতে গিয়ে তিনি বলেন, ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের সময় রাজশাহীর কোনো এক কেন্দ্রে ঐ এলাকার সংসদ সদস্য বসে ছিলেন। অনেক অনুরোধ করার পরেও যখন তিনি উঠলেন না, তখন ঐ এলাকার নির্বাচন আমরা বন্ধ করে দিতে বাধ্য হয়েছি। ময়মনসিংহেও এক এমপি বসেছিলেন, অনুরোধ করার পরেও যখন তিনি উঠলেন না তখন নির্বাচন বন্ধের হুমকি দেওয়ার পর তিনি সরলেন।

তিনি বলেন, নির্বাচন কমিশনকে চাপে ফেলার জন্য অতিরিক্ত অভিযোগ করা হচ্ছে। নির্বাচন কমিশনের কাছে সুনির্দিষ্ট অভিযোগ করতে হবে। এখন ইসির কাছে যে সমস্ত অভিযোগ আসছে তার অধিকাংশই বিচ্ছিন্নভাবে।

তিনি আরও বলেন, নির্বাচনে বিদেশী পর্যবেক্ষক নিয়োগ মানে, নিজেদের সার্বভৌমত্ব অন্যের উপর ছেড়ে দেওয়া। এটা আসলেই আমাদের রাজনৈতিক দেউলিয়াত্বের প্রকাশ। নিজেদের রাজনীতি অন্যের উপড় ছেড়ে দিচ্ছে, নিজেদের নির্বাচন অন্যের উপড় ছেড়ে দিচ্ছে। নিজেদের সার্বভৌমত্ব প্রশ্নে অন্যের উপর ছেড়ে দেওয়া এটা খুবই লজ্জাজনক।

মো. শাহনেওয়াজ বলেন, নির্বাচনী আচরণ বিধি তফশিল ঘোষণার পর থেকেই মানতে হয়। নির্বাচনী প্রচার প্রচারণার সময় আরও বেশি মানতে হয়। মূলত কোনো রাজনৈতিক দল তফশিল ঘোষণার পর মিছিল করতে পারবে না, কোনো মহরা দিতে পারবে না। সাধারণ ভাবে যদি আমরা চিন্তা করি তাহলে, দু-দলই আচরণ বিধি লঙ্ঘন করেছে। তাদের মনোনয়ন পত্র জমা দিতে গিয়ে।

আচরণ বিধি ভঙ্গ হলে নির্বাচন কমিশনের তাৎক্ষনিক ভাবে ব্যবস্থা নেওয়া উচিৎ । নির্বাচন কমিশনের কি এমন কোনো সেল আছে যে, গণমাধ্যম মনিটর করা হয়। এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, স্বাভাবিক অবস্থায় নেই। কিন্তু এটা সব নির্বাচনে করা হয় যারা মনিটরিং করবে এবং অভিযোগগুলো চেক করবে।