Skip to main content

উন্নয়নে সরাসরি অবদান রাখতে চাই : ডা. প্রাণ গোপাল দত্ত

  • D. Pran Gupal Datta
    D. Pran Gupal Datta

আসন্ন নির্বাচনে মনোনয়ন প্রার্থী অনেক রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব মনোনয়নপত্র নিয়েছেন। রাজনৈতিক অঙ্গনে আনাগোনা বাড়ছে বিভিন্ন সেলিব্রেটিদের। অনেকেই দেশ ও দেশের মানুষের জন্য কাজ করার প্রত্যাশা ব্যক্ত করছেন। তেমনি একজন আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন প্রত্যাশী ডা. প্রাণ গোপাল দত্ত। তিনি একজন খ্যাতনামা চিকিৎসক ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য। বহু বছর ধরে বিনামূল্যে এলাকার মানুষকে চিকিৎসা সেবা দিয়ে আসছেন তিনি। এলাকার মানুষের জন্য বড় একটি দাতব্য চিকিৎসালয় করে আসহায় মানুষের মাঝে উন্নত চিকিৎসা সেবা পৌঁছে দিতে চান বলে আশাবাদ প্রকাশ করেন তিনি।

এ প্রতিবেদকের সঙ্গে আলাপকালে তিনি বলেন, কুমিল্লার চান্দিনার মানুষকে অনেক বছর ধরে বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা দিচ্ছেন। গ্রামে উন্নত চিকিৎসা ব্যবস্থা নাজুক। সরকারি উদ্যোগে যে কয়েকটি কমিউনিটি ক্লিনিক হয়েছে সেগুলো প্রয়োজনের তুলনায় অপর্যাপ্ত। তাছাড়া সুষ্ঠু তদারকির অভাবে ক্লিনিকগুলোর পরিচালনা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ কাজে অবহেলা করছে ও অনুন্নত চিকিৎসা সেবা প্রদান করছে। শহরে অসংখ্য উন্নত হাসপাতাল রয়েছে। টাকা থাকলে যে কেউ শহরে হাসপাতাল স্থাপন করতে পারেন। কিন্তু গ্রামে রাজনৈতিক শক্তি না থাকলে কোনো কাজই করা যায় না। সবক্ষেত্রে রাজনৈতিক বাধা পরিলক্ষিত হয়।


 
আলাপকালে ডা. প্রাণ গোপাল দত্ত বলেন, তার নিজের এলাকার এলাকার মানুষের শিক্ষা ব্যবস্থাও খুব ভালো নয়। সরাসরি অনেক উন্নয়নমূলক পদক্ষেপ গ্রহণ করতে চেয়েছি বহুবার। কিন্তু রাজনৈতিক বাধার কারণে প্রত্যক্ষ কোনো কাজে অংশ নিতে পারিনি কখনো।

রাষ্ট্রীয় কাজে অনেক গুরুত্বপূর্ণ অবদানের কথা উল্লেখ করে বলেন, গত ১৫ বছর যাবত তিনি ছিলেন বাংলাদেশের চিকিৎসকদের মধ্যে সর্বোচ্চ করদাতা। গত বছরে দেশের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ করদাতা হয়েছেন। রাষ্ট্রীয় নানা কাজে অংশ নিতে পারলেও এলাকার কোনো উন্নয়নমূলক কাজে তিনি সরাসরি অংশ নিতে পারছেন না বলে আক্ষেপ প্রকাশ করেন।

তিনি আরও বলেন, গ্রামে এমপি হয়ে টাকা লুটপাট করতে নয়, তার সারাজীবনের অর্জিত অর্থ এলাকার মানুষের কল্যাণে ব্যয় করতে রাজনৈতিক অঙ্গনে পদার্পণ করেছেন তিনি। জীবনের শেষ সময়টুকু খুব কাছ থেকে মানুষের সেবায় নিয়োজিত থেকে, তাদের সুখ-দুঃখের অংশীদার হতে চান ড. প্রাণ গোপাল দত্ত।