Skip to main content

বিএনপি নেতাদের কারাগারে রেখে লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড হয় কীভাবে : সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল

  • Alal
    Alal

বিএনপির যুগ্ম-মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল বলেছেন, জাতীয় নির্বাচন ঘরের দরজায়। আওয়ামী লীগ নির্বাচনের প্রচার-প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছে আর বিএনপি নেতারা কারাগারে দিন কাটাচ্ছে। এটাকে কি লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড বলা যায়? এ প্রতিবেদকের সঙ্গে আলাপকালে তিনি আরও বলেন, নির্বাচনে সব দলের সমান সমান সুযোগ থাকলে, তখন তাকে লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড বলা যায়। কিন্তু কোনো ক্ষেত্রেই সেটা হচ্ছে না। লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড তৈরি করতে হলে রাজনৈতিক মামলায় গ্রেপ্তারকৃত বিএনপির সব নেতা-কর্মীকে ছেড়ে দিতে হবে।

এক প্রশ্নের জবাবে সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল বলেন, আওয়ামী লীগ দুই বছর আগে থেকেই জাতীয় নির্বাচনের ভোট চাইতে শুরু করেছে। আর বিএনপি মাত্র নির্বাচনে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। সেজন্য জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট নির্বাচন কমিশনের কাছে একমাস সময় চেয়েছে। একমাস সময় পেলে আমরা নির্বাচনের প্রস্তুতি সম্পন্ন করতে পারবো।


 
তিনি বলেন, সংবিধানের মধ্যে থেকেই নির্বাচনের তফসিল একমাস পিছিয়ে দেয়া সম্ভব। কিন্তু নির্বাচন কমিশন আমাদের আবেদনে সাড়া দিচ্ছে না। নির্বাচন কমিশনের এমন অসহযোগিতা লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড তৈরি করার ক্ষেত্রে অন্তরায় হয়ে দাঁড়িয়েছে। নির্বাচন কমিশন যদি নির্বাচন একমাস পিছিয়ে দেয় তাহলে একটা সুষ্ঠু সুন্দর নির্বাচনের পরিবেশ তৈরি হবে।

তিনি আরও বলেন, বিএনপির কারাবন্দি সব নেতা-কর্মীকে ছেড়ে দিতে হবে। নতুন করে কোনো নেতা-কর্মীকে আটক করা যাবে না। রাজনৈতিক বা গায়েবি মামলা থেকে বিরত থাকতে হবে। নির্বাচনের তফসিল একমাস পিছিয়ে দিতে হবে। সব দলকে সভা-সমাবেশের সমান সুযোগ তৈরি করে দিতে হবে। হুমকি-ধামকি হয়রানি বন্ধ করতে হবে। তাহলে প্রথমিক পর্যায়ে লেভেল প্লের্য়ি ফিল্ড তৈরি হবে।