Skip to main content

মনোনয়ন বাতিল ও অন্যের ভোট দেয়া

  • মনোনয়ন বাতিল ও অন্যের ভোট দেয়া
    মনোনয়ন বাতিল ও অন্যের ভোট দেয়া

রিটানিং অফিসাররা মনোনয়নপত্র বাছাই শুরু করলে অনেক হেভিওয়েট প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিল হতে শুরু করেছে। তবে মনোনয়নপত্র সঠিকভাবে সবচেয়ে পূরণ করেছেন সরকারি দল আওয়ামী লীগের প্রার্থীরা। সেদিক থেকে বিএনপির প্রার্থীদের অনেক ভুল ত্রুটি ধরতে পারছে রিটার্নিং অফিসাররা। কারো হয়ত স্বাক্ষর নেই, কেউ খেলাপি আবার কারো ভুয়া ভোটারদের স্বাক্ষর তালিকা জমা দেয়া হয়েছে। তবে সবচেয়ে বিস্ময়কর বক্তব্য দিয়েছেন, নির্বাচন কমিশনার রফিকুল ইসলাম। শনিবার তিনি ভোটারদের উদ্দেশ্যে বলেছেন, ‘আপনার ভোট অন্য কেউ দিয়ে দিলেও হতাশ হবেন না’। নির্বাচন কমিশন আসলে কি ধরনের নির্বাচন চাচ্ছে তার এ বক্তব্যে অনেকটা পরিস্কার হয়ে গেছে। কোন ধরনের দায়িত্ব থেকে তিনি এমন বক্তব্য দিলেন এবং বলেন, ভোটের দিন কোন ভোটার কেন্দ্রে গিয়ে যদি দেখেন, কেউ তার ভোটটা দিয়ে দিয়েছে, তাহলে হতাশ হবেন না। কেন তিনি এধরনের পরামর্শ দেন?

শনিবার আগারগাঁওয়ে নির্বাচন ভবনে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন উপলক্ষে সরকারি কর্মকর্তাগণের প্রশিক্ষকদের প্রশিক্ষণে বক্তৃতায় ভোটারদের এ পরামর্শ দেন তিনি।

কমিশনার রফিকুল বলেন, নির্বাচনের দিন গণমাধ্যমে দেখতে পাই কোন একজন ভোটার বলছেন, আমার ভোটটা দেয়া হয়েছে গেছে! অথচ এটা কোনোভাবেই হওয়ার কথা নয়। নির্বাচনি দায়িত্বে নিয়োজিত কর্মকর্তারা ঠিকমত দায়িত্ব পালন করলে একজনের ভোট আরেকজনের দেয়ার কথা নয়। তারপরও এরকম ঘটনা ঘটে গেলে আইনে এর প্রতিকার রাখা আছে।

কমিশনার রফিকুল ইসলাম বলেন, কারও ভোট দেয়া হয়ে গেলেও প্রকৃত ভোটারের ভোট দেয়ার বিধান রাখা আছে জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আইনে। যদি প্রিজাইডিং অফিসার সেটিসফায়েড হন যে- অভিযোগকারী ভোটার নিজের ভোট নিজে দেননি, তিনি সত্যিকার অর্থে ভোটার, তার ভোটটা অন্য কেউ দিয়ে গেছে- জাস্ট অ্যালাউ হিম উইদাউট এনি কোয়েশ্চেন। এটা করা হলে নির্বাচনকে কেউ প্রশ্নবিদ্ধ করতে পারবে না।