Skip to main content

আলু-রুটির দোকান খোলা উচিত তাঁর

  •  আলু-রুটির দোকান খোলা উচিত তাঁর
    আলু-রুটির দোকান খোলা উচিত তাঁর

অভিষেক অভিনয় করবেন আর ছবি ফ্লপ হবে না, তা কি হয়? ছবি ফ্লপ করার ওস্তাদ তিনি। অভিনয় করা বাদ দিয়ে তাঁর এখন আলু-রুটির দোকান দেওয়া উচিত। অভিষেক বচ্চনকে উদ্দেশ করে টুইটারে এসব লিখে তাঁর তোপের মুখে পড়েছেন এক চিকিৎসক। তাঁর এক টুইটের জবাবে তিনবার রিটুইট করেছেন অভিষেক।

বুধবার ভোরে ড. হর্ষবর্ধন কেলে নামের একটি আইডি থেকে লেখা হয়, ‘মনমর্জিয়াও গেল। ভালো ছবি ফ্লপ করার অসাধারণ ক্ষমতা আছে জুনিয়র বচ্চনের, সেটা আবারও প্রমাণিত হলো। তাঁর এই ক্ষমতাকে কুর্নিশ করি, এটা সবার থাকে না। তারকার সন্তান হিসেবে সুযোগ না নিয়ে এখন তাঁর আলু-রুটির (ভাদা পাভ) দোকান দেওয়া উচিত। ‘স্ত্রী’ প্রমাণ করে দিয়েছে—মেধাই সব।

ভদ্রলোকের ওপর ক্ষেপে অভিষেক লিখেছেন, যথাযথ সম্মান রেখে বলছি স্যার, এ ধরনের মন্তব্য করার আগে আপনার মতো একজন সম্মানিত চিকিৎসকের কাছে বাস্তবতা বিবেচনার প্রত্যাশা করব। আশা করি, নিজের রোগীদের ক্ষেত্রেও তাই করবেন। সিনেমার অর্থনীতি না জেনে এ ধরনের মন্তব্য করলে আপনাকে বিব্রত হতে হবে।

দ্বিতীয় টুইটে অভিষেক লিখেছেন, আপনার জ্ঞাতার্থে বলতে চাই (আমি নিশ্চিত, ভাদা পাভ বিক্রেতারাও একমত হবেন) ভাদা পাভের দোকান চালানোও একটি সম্মানজনক কাজ। একে বলে শ্রমের মর্যাদা। অন্য পেশাজীবীদের অতিরিক্ত উৎসাহ দেওয়ার কিছু নেই। আমরা সবাই নিজের কাজে যথেষ্ট শ্রম দিই।

শেষ টুইটে অভিষেক লিখেছেন, এটা বলে শেষ করতে চাই যে, ‘স্ত্রী’ ছবিতেও একজন তারকার সন্তানই অভিনয় করেছেন। ভালো থাকবেন এবং সিনেমা ইন্ডাস্ট্রি বিশ্লেষণ না করে ভালো চিকিৎসক হওয়ার পেছনে সময় দিন। কেননা আপনিই বলেছেন, মেধাই সব।

প্রায় দুই বছর পর ‘মনমর্জিয়া’ ছবির মধ্য দিয়ে বড় পর্দায় এলেন অভিষেক। ছবিতে তাঁর সঙ্গে অভিনয় করেছেন তাপসী পান্নু। হিট তো দূরের কথা, দ্বিতীয় সপ্তাহে রীতিমতো নাভিশ্বাস উঠেছে ছবিটির। ডেকান ক্রনিকেল